32 C
ঢাকা, বাংলাদেশ
রাত ১০:০৬ | ১৭ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ খ্রিস্টাব্দ | ২রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ বঙ্গাব্দ
গ্রীন পেইজ
বালু তোলায় হুমকির মুখে সুন্দরবনের পরিবেশ
পরিবেশ দূষণ পরিবেশ রক্ষা পরিবেশগত অর্থনীতি

বালু তোলায় হুমকির মুখে সুন্দরবনের পরিবেশ

বালু তোলায় হুমকির মুখে সুন্দরবনের পরিবেশ

পশ্চিম সুন্দরবনের খুলনা রেঞ্জের কয়রা উপজেলার শাকবাড়িয়া নদী থেকে বেশ কয়েকটি ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু তোলা হচ্ছে। আইন অনুযায়ী এভাবে বালু তোলা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

অথচ সরকারি বাঁধ নির্মাণের কাজেই তোলা হচ্ছে এই বালু। আর এই বালু তোলা হচ্ছে সুন্দরবনের নদীর ভাঙনকবলিত এলাকা থেকে। এই ব্যাপারে জেলা প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না। বালু তোলা অব্যাহত থাকায় ওই এলাকায় ভাঙনের তীব্রতা বাড়বে বলে আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

এই কাজ তদারকির দায়িত্বে থাকা নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আসিকুর রহমান বলেন, ‘ভাঙনের পাশ থেকে বালু তুললে তা এখনই বন্ধ করার ব্যবস্থা নিচ্ছি। একই সঙ্গে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাছেও কৈফিয়ত তলব করা হবে।’



পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্রে জানা যায়, খুলনার কয়রা উপজেলায় পাউবোর ১৪/১ পোল্ডারের হরিহরপুর এলাকায় এম এম বিল্ডার্স ও আমীর ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ডার্ড ইঞ্জিনিয়ারিং নামের তিনটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান প্রায় দুই কিলোমিটার ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধের নদীতীর রক্ষা কাজ করছে। এ কাজের জন্য প্রায় এক’শ কোটি টাকা চুক্তি মূল্যে ধরা হয়েছে।

প্রতিদিন সুন্দরবনের নদীর ভাঙনকবলিত স্থান থেকে কয়েক হাজার ঘনফুট বালু তুলে উপজেলার উত্তর বেদকাশী ইউনিয়নের হরিহরপুর বেড়িবাঁধের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো স্থানীয় ড্রেজারমালিকের সঙ্গে চুক্তি করে এভাবে এক মাস ধরে বালু তুলছেন।

অথচ বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন, ২০১০-এর ধারা ৫-এর ১ উপধারা অনুযায়ী, পাম্প বা ড্রেজিং বা অন্য কোনো মাধ্যমে ভূগর্ভস্থ বালু বা মাটি উত্তোলন করা যাবে না।

ধারা ৪-এর (খ) অনুযায়ী, সেতু, কালভার্ট, বাঁধ, সড়ক, মহাসড়ক, রেললাইন ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ও বেসরকারি স্থাপনা অথবা আবাসিক এলাকা থেকে এক কিলোমিটারের মধ্যে বালু উত্তোলন নিষিদ্ধ। আইন অমান্যকারী দুই বছরের কারাদণ্ড ও সর্বোচ্চ দশ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

শনিবার সকাল ১০টায় দেখা যায়, শাকবাড়িয়া নদীর পূর্ব পাশে সুন্দরবন এবং পশ্চিম পাশে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) ভাঙনকবলিত বাঁধ।

উপজেলার হরিহরপুর লঞ্চঘাটসংলগ্ন এলাকা থেকে জোড়শিং এলাকার সুন্দরবনের বজবজা বন টহল ফাঁড়ির মধ্যবর্তী শাকবাড়িয়া নদীর চার কিলোমিটার এলাকার মধ্য থেকে প্রতিদিন ১৫–২০ হাজার ঘনফুট বালু তোলা হচ্ছে।

কার্গোতে তুলে ওই বালু নদীর কিনারে এনে বস্তায় ভরছেন কিছু শ্রমিকেরা। সেই বস্তা গণনা শেষে আবারও নদীর মধ্যেই ফেলা হচ্ছে।

সেখানে কাজ তদারকির জন্য পাউবোর কোনো কর্মকর্তাকে দেখা যায়নি। ভাঙনকবলিত উপকূল রক্ষা বাঁধ সংস্কারের জন্য পাশের নদী থেকে বালু তোলার ঘটনায় আপত্তি জানিয়েছেন স্থানীয় লোকজন।

এ বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দা বনমালা মন্ডল বলেন, প্রতি রাতেই সেখানকার বাঁধের কোনো না কোনো স্থানে ধস পড়ছে। সুন্দরবনের পাশ থেকে বালু তোলায় সেখানেও ভাঙনের তীব্রতা ক্রমশ বেড়েছে। শুধু অধিক মুনাফার লোভে ভাঙনকবলিত এলাকার নদী থেকে বালু তোলা হচ্ছে।



স্থানীয় ইউপি সদস্য হরষিত মন্ডল বলেন, সুন্দরবনের শাকবাড়িয়া নদীর যে অংশ থেকে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে, তার পাশে অতীতেও একাধিকবার ভাঙনের ঘটনা ঘটেছে।

যেখানে ভাঙনের তীব্রতা বেশি, সেখান থেকেই বালু তুলে ভাঙন ঠেকানোর চেষ্টা করছেন ঠিকাদার। একই সঙ্গে সুন্দরবনকে ঝুঁকিতে ফেলছে। ঠিকাদারের এমন কাণ্ডজ্ঞানহীন কাজ সরকারের বড় একটি উন্নয়ন প্রকল্প প্রশ্নবিদ্ধ করবে।

বালু উত্তোলনের কাজে নিয়োজিত মো. হারুনর রশীদ বলেন, এখানে বালু সরবরাহের জন্য মোট ৭টি ড্রেজার রয়েছে। এর মধ্যে আমার চারটি ছাড়াও পাইকগাছার আপিল, কয়রার সৌরভ ও গণেশ চন্দ্র মন্ডলের একটি করে ড্রেজার রয়েছে। তবে অন্যরা সুন্দরবন ও বাঁধের মধ্যবর্তী নদী থেকে বালু উত্তোলন করলেও তিনি দূর থেকে বালু আনছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সুন্দরবন খুলনা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক এ জেড এম হাসানুর রহমান বলেন, ‘সুন্দরবনসংলগ্ন নদী থেকে বালু তোলা বনের জন্য হুমকিস্বরূপ। বিষয়টি আমরা জানতে পেরেছি। ওই এলাকা থেকে বালু তোলা বন্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’

খুলনা জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসিন আরেফিন বলেন, কয়রা উপজেলার কোনো নদী থেকে বালু তোলার অনুমতি নেই। কারণ, উপকূলীয় ওই এলাকাটি নদীভাঙন এলাকা হিসেবে চিহ্নিত। এর আগেও ওই এলাকায় বালুদস্যুদের জরিমানা করা হয়েছিল। এ ব্যাপারে এখনই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

“Green Page” কে সহযোগিতার আহ্বান

সম্পর্কিত পোস্ট

Green Page | Only One Environment News Portal in Bangladesh
Bangladeshi News, International News, Environmental News, Bangla News, Latest News, Special News, Sports News, All Bangladesh Local News and Every Situation of the world are available in this Bangla News Website.

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই স্কিপ করতে পারেন। গ্রহন বিস্তারিত