29 C
ঢাকা, বাংলাদেশ
ভোর ৫:০৭ | ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ বঙ্গাব্দ
গ্রীন পেইজ
বাঘ সুরক্ষায় বন বিভাগের নানা উদ্যোগ: বিশ্ব বাঘ দিবস
প্রাণী বৈচিত্র্য

বাঘ সুরক্ষায় বন বিভাগের নানা উদ্যোগ: বিশ্ব বাঘ দিবস

বাঘ সুরক্ষায় বন বিভাগের নানা উদ্যোগ: বিশ্ব বাঘ দিবস

সুন্দরবনে বাঘের প্রজনন এবং বংশ বৃদ্ধিসহ অবাধে চলাচলের জন্য পুরো সুন্দরবনের অর্ধেকেরও বেশি এলাকাকে সংরক্ষিত বন হিসেবে ঘোষণা, টহলের ফাঁড়ি বৃদ্ধি সহ চোরা শিকারিদের তৎপরতা বন্ধে আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর স্মার্ট পেট্রোলিং চালু এবং প্রজনন মৌসুমে সকল পাশ-পারমিট বন্ধসহ বাঘ সুরক্ষায় নানা পদক্ষেপ নিয়েছে বন বিভাগ। এ অবস্থায় আজ বিশ্ব বাঘ দিবস নিরবেই পালিত হচ্ছে।

এদিকে, সুন্দরবনের বাংলাদেশের অংশে গত ৪ বছরে বাঘের সংখ্যা ছিলো ১০৬, যা বেড়ে বর্তমানে ১১৪টি হয়েছে। অর্থাৎ গত চার বছরে সুন্দরবনের বাঘের সংখ্যা বেড়েছে মাত্র ৮টি। সর্বশেষ বাঘ জরিপে সুন্দরবনে ১১৪টি বাঘ রয়েছে বলে ক্যামেরা ট্রাকিং জরিপে উঠে এসেছে।

বন বিভাগের সূত্র জানায়, ১৯৭৫ সালের জরিপ অনুযায়ী সুন্দরবনে বাঘ ছিলো ৩৫০টি। এরপর ১৯৮২ সালে জরিপে বেড়ে ৪২৫টি এবং ১৯৮৪ সালে সুন্দরবন দক্ষিণ বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্যের ১১০ বর্গ কিলোমিটার এলাকায় জরিপ চালিয়ে ৪৩০ থেকে ৪৫০টি বাঘ থাকার কথা জানানো হয়।



একইভাবে, ১৯৯২ সালে সেটা কমে ৩৫৯টি বাঘ থাকার তথ্য জানায় বন বভিাগ। ১৯৯৩ সালে সুন্দরবনে ৩৫০ বর্গ কিলোমিটার এলাকায় জরিপ চালিয়ে ধন বাহাদুর তামাং ৩৬২টি বাঘ রয়েছে বলে তিনি জানান।

২০০৪ সালের জরিপে বাঘের সংখ্যা ছিলো ৪৪০টি। ১৯৯৬-৯৭ সালের জরিপে বাঘের সংখ্যা উল্লেখ করা হয় ৩৫০টি থেকে ৪০০টি। ওই সময়ে বাঘের পায়ের ছাপ পদ্ধতিতে গণনা করা হয়।

২০১৫ সালের জরিপে সুন্দরবন বাংলাদেশের অংশে বাঘের সংখ্যা আশংকাজনক হারে কমে দাঁড়ায় মাএ ১০৬টিতে। সর্বশেষ ক্যামেরা ট্রাকিং জরিপে সুন্দরবনে ১০৬টি থেকে বেড়ে বর্তমানে বাঘের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১৪টি।

প্রাণি বিশেষজ্ঞ ও পরিবেশবাদীরা সুন্দরবনের বাঘের মৃত্যুর জন্য ৯টি কারণ চিহ্নিত করেছেন। এগুলো হচ্ছে প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ঝড়, বন্যা, জলোচ্ছ্বাস লবণাক্ততা বেড়ে যাওয়ায় লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত হওয়া, খাদ্য সংকট, মিঠাপানির অভাব, বন ধ্বংস, চোরাশিকারি, বাঘের আবাসস্থল অভাব, অপরিকল্পিত পর্যটন এবং বনের মধ্যে অনিয়ন্ত্রিত যান চলাচলে বনের পরিবেশ দূষণ।

তার সাথে বাঘ রক্ষায় আবাসস্থল সংরক্ষণ, বনের ভিতরে নিয়ন্ত্রিত পর্যটনের বিকাশ, বিষ দিয়ে মাছ ধরা বন্ধ করা সহ, নানা সুপারিশ করেছেন তারা।

কয়রার সুন্দরবন মৎস্যজীবী সমিতির সভাপতি ইউপি সদস্য সরদার লুৎফর রহমান বলেন, সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বেড়েছে এটা নি:সন্দেহে খুশির বিষয়। বাঘের আবাসস্থল সুন্দরবনকে আরো নিরাপদ করতে পারলে অবশ্যই বাঘের সংখ্যা আরো বেশি বৃদ্ধি পাবে।



সুন্দরবনের সহ ব্যবস্থাপনা নির্বাহী কমিটির সদস্য মো. সাইফুল ইসলাম গাজী বলেন, লোকালয়ে আসা বাঘ নিরাপদে বনে ফিরাতে ইতিমধ্যে এলাকায় ব্যাপক জন সচেতনতা সৃষ্টি করা হয়েছে। যার কারনে এখন আর মানুষ বাঘ পিটিয়ে মারে না।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলজি এবং জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিসিপ্লিনের অধ্যাপক ড. এস কে আমির হোসেন বলেন, বাঘ প্রচন্ড পরিমানে ক্ষুধা না লাগলে লোকালয়ে আসে না।

আর লোকালয়ে আসার কারনে অনেক বাঘের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এ জন্য সুন্দরবনের অভ্যন্তরে গহীন বনে বাঘের খাদ্য পুরোপুরি নিশ্চিত করতে হবে। সেখানে বাঘের প্রজনন ঘটানোর চেষ্টা করতে হবে।

সুন্দরবনের বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র নিয়ে কাজ করা ‘সেভ দ্যা সুন্দরবন ফাউন্ডেশন’র চেয়ারম্যান ড. শেখ ফরিদুল ইসলাম বলেন, আশঙ্কাজনক হারে সুন্দরবনে বাঘ কমেছে। এটা বাঘের জন্য একধরনের হুমকি সরূপ।

তবে সুন্দরবনের ৫২ শতাংশ সংরক্ষিত বনাঞ্চলের শর্ত পুরোপুরিভাবে বাস্তবায়ন করতে পারলে সুন্দরবনের অন্যান্য প্রাণীর সাথে সাথে বাঘও একসময় সাবলিল ভাবে বিচরণ করতে পারবে। আর এই সাবলিল বিচরণের ফলে বাঘের প্রজনন বৃদ্ধি পাবে।

সুন্দরবন পশ্চিম বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) ড. আবু নাসের মোহসীন হোসেন বলেন, সুন্দরবনে বনদস্যুদের আত্মসমর্পন করে স্বাভাবিক জীবনে ফেরা এবং চোরা শিকারিদের দৌরাত্ব্য কম হওয়ার ফলে বাঘের সংখ্যা সর্বশেষ জরিপে বেড়েছে।

ইতিমধ্যে বাঘের প্রজনন ও বংশ বৃদ্ধিসহ অবাধ চলাচলের জন্য সম্পূর্ন সুন্দরবনের অর্ধেকেরও বেশি এলাকাকে সংরক্ষিত বন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। সুন্দরবনকে বন্যপ্রাণীর জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ করতে একান্ত ভাবে কাজ করছে বন বিভাগ বলে তিনি জানান।

“Green Page” কে সহযোগিতার আহ্বান

সম্পর্কিত পোস্ট

Green Page | Only One Environment News Portal in Bangladesh
Bangladeshi News, International News, Environmental News, Bangla News, Latest News, Special News, Sports News, All Bangladesh Local News and Every Situation of the world are available in this Bangla News Website.

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই স্কিপ করতে পারেন। গ্রহন বিস্তারিত