25 C
ঢাকা, বাংলাদেশ
রাত ৯:১৪ | ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
গ্রীন পেইজ
আন্তর্জাতিক পরিবেশ

জার্মানির বনাঞ্চল পোকামাকড় ও ছত্রাকের হামলায় বিপর্যস্ত

বেড়ে চলা উষ্ণতা ও শুষ্ক আবহাওয়া সত্ত্বেও জার্মানিতে গাছপালা, বনজঙ্গল বাঁচিয়ে রাখতে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে ভাবনাচিন্তা চলছে ৷

মিশ্র জঙ্গল, ভিন্ন জাতের গাছপালা লাগিয়ে পরিবর্তিত পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া ছাড়া কোনো উপায় দেখা যাচ্ছে না৷

অন্য জাতের গাছও শুষ্ক আবওয়ার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ৷ অনেক বিচ গাছের বাকল রোগের কবলে পড়ছে৷ ডাইপ্লোডিয়া নামের এক ছত্রাক এমন গাছ মেরে ফেলছে৷ লার্চ বার্ক বিটল পোকা লার্চ গাছের উপর হামলা চালাচ্ছে৷

হেসে রাজ্যের অরণ্যের একটা অংশ বিশেষভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ প্রায় ২০ হেক্টর জুড়ে প্রায় ৩০,০০০ সাইকোমোর গাছ দ্রুত কেটে ফেলতে হয়েছে৷ শুধু কিছু অবশিষ্ট অংশ পড়ে রয়েছে৷ উত্তর অ্যামেরিকা থেকে আসা এক ছত্রাকের কারণে সেই গাছগুলির ‘সুটি বার্ক ডিজিজ’ নামের রোগ হয়েছিল৷ সেই ছত্রাক গাছের বাকলের নীচে বেড়ে ওঠে৷ পর্যাপ্ত পানির অভাবে গাছ দুর্বল হয়ে পড়লে সেই ছত্রাক দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে এবং প্রায় এক সেন্টিমিটার পুরু কালো স্তর সৃষ্টি হয়৷ সেই ছত্রাক মানুষের মধ্যেও মারাত্মক অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়া ঘটাতে পারে৷

বনবিভাগের স্থানীয় কর্মকর্তা ও তাঁর সহকর্মীদের কয়েক সপ্তাহ ধরে শ্বাসপ্রশ্বাসের জন্য বিশেষ মাস্ক পরে জঙ্গলের মধ্যে ঘুরতে হয়েছিল৷ বনবিভাগের কর্মকর্তা ইয়োর্গ হেসলার বলেন, ‘‘সেটা খুবই বেদনাদায়ক ঘটনা ছিল, কারণ জার্মানিতে এর আগে এত বড় মাত্রায় এমন বিপর্যয় ঘটেনি৷ শহরের পার্কে বিচ্ছিন্ন কিছু গাছের এমন দশা হয়েছে৷ কিন্তু ২০১৮ সালের মারাত্মক গ্রীষ্মকালের পর এখানে এত বড় মাত্রার ক্ষতি হচ্ছে, যা সম্পূর্ণ বিপর্যয় ডেকে আনছে৷’’

নিজের অরণ্য এলাকার কিছু অংশে ইয়োর্গ হেসলার কোস্ট গ্র্যান্ড ফার, পাইন ও রেড ওক গাছ লাগিয়েছেন৷ বর্তমান জলবায়ুর সঙ্গে এমন গাছ আরও সহজে মানিয়ে নিতে পারবে বলে তাঁর আশা৷ কিন্তু নতুন প্রজাতির গাছগুলি ইতোমধ্যেই সমস্যার মুখে পড়েছে৷ ইয়োর্গ হেসলার বলেন, ‘‘বিশেষ ধরনের মথের কারণে ওক গাছের সমস্যা শুরু হয়েছে৷ আমরা এ বিষয়ে পুরোপুরি নিশ্চিত না হলেও বিষয়টিকে উপেক্ষা করা যায় না৷’’

চারাগাছ টিকিয়ে রাখতে ইয়োর্গ ২০টি পানির আধার প্রস্তুত রেখেছেন৷ দীর্ঘ সময় ধরে শুষ্ক মরসুম চললে তিনি সেগুলি ব্যবহার করছেন৷ তাতে কাজ হচ্ছে কিনা, তিনি অদূর ভবিষ্যতেই জানতে পারবেন৷

বন বিভাগের কর্মকর্তা হিসেবে পেট্রা ভেস্টফাল আকাশ থেকে বার্ক বিটল পোকার মোকাবিলার আশা করছেন৷ ফরেস্ট্রি বিজ্ঞানী ও ড্রোন বিশেষজ্ঞরা মিলে এমন চালকবিহীন এরিয়াল ভেহিকল তৈরি করছেন, যার মধ্যে গ্যাস সেন্সর থাকবে৷ বার্ক বিটল কোনো গাছে হামলা চালালে রজনের যে গন্ধ বের হয়, সেন্সর তা টের পাবে৷ বন বিশেষজ্ঞ হিসেবে সেবাস্টিয়ান পাচকভস্কি বলেন, ‘‘বার্ক বিটল যা করে, আসলে আমরাও সেটাই করছি৷ সেই পোকা গন্ধ শুঁকে আক্রান্ত গাছে ঢুকে গর্ত করে৷ আর আমরা গাছ শনাক্ত করে সেটি সরিয়ে নেবার ব্যবস্থা করছি৷’’

বিটল বংশবৃদ্ধি করার আগে, প্রথম পর্যায়েই সেই গাছ কেটে ফেলা এই উদ্যোগের লক্ষ্য৷ তবে ডিটেক্টর ড্রোন এখনো বিক্রির জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত হয় নি৷ পেট্রা ভেস্টফাল এই ড্রোন সম্পর্কে আশাবাদী৷ তিনি বলেন, ‘‘এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে আমরা আরও দ্রুত, আরও বেশি সংখ্যক আক্রান্ত গাছ চিহ্নিত করতে পারবো৷ ফলে আমরা আরও বেশি গাছ বাঁচাতে পারবো৷’’

আপাতত জঙ্গলের পথের ধারে বিটল পোকায় আক্রান্ত স্প্রুস গাছের গুঁড়ির সংখ্যা বেড়েই চলেছে৷ কারণ বাজারে স্প্রুস কাঠের চাহিদা সীমিত৷ গাছের গুঁড়ি জঙ্গলে থেকে গেলে পোকার বংশবৃদ্ধি চলতেই থাকবে৷ সে কারণে আঞ্চলিক প্রশাসন কীটনাশক ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছে৷ কিন্তু সমস্যা হলো, তার ফলে অন্য প্রাণীও মারা যাচ্ছে৷

ভবিষ্যতে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রস্তুতি নিতে পেট্রা ভেস্টফাল সেখানে প্রকৃতির নিয়ম মেনে মিশ্র জঙ্গল সৃ্ষ্টি হতে দিতে চান৷ অর্থাৎ গাছই বীজ ছড়িয়ে সংখ্যা বাড়াবে৷ সে ক্ষেত্রে নানা জাতের গাছ বেড়ে উঠবে বলে আশা করা হচ্ছে৷ পেট্রা ভেস্টফাল বলেন, ‘‘সেটা এ কারণে গুরুত্বপূর্ণ, যে ভবিষ্যতে জলবায়ু ও কীটপতঙ্গের কারণে কোনো বিশেষ প্রজাতির গাছ নষ্ট হলে, সেই শূন্যস্থান পূরণ করতে অন্য জাতের গাছ লাগানো হবে৷’’

ভবিষ্যতের জঙ্গল কেমন দেখতে হবে, সে বিষয়ে এমনকি বিশেষজ্ঞরাও নিশ্চিত নন৷ জলবায়ু সংক্রান্ত পূর্বাভাষের ভিত্তিতে জারমানির মধ্যভাগে স্প্রুস ও বিচ গাছের পক্ষে টিকে থাকা কঠিন৷ ২০৭০ সালের মধ্যে সেগুলি জার্মানির জঙ্গল থেকে সম্ভবত পুরোপুরি উধাও হয়ে যাবে৷ সূত্র: ডিডাব্লিউ

“Green Page” কে সহযোগিতার আহ্বান

সম্পর্কিত পোস্ট

Green Page | Only One Environment News Portal in Bangladesh
Bangladeshi News, International News, Environmental News, Bangla News, Latest News, Special News, Sports News, All Bangladesh Local News and Every Situation of the world are available in this Bangla News Website.

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই স্কিপ করতে পারেন। গ্রহন বিস্তারিত