28 C
ঢাকা, বাংলাদেশ
সকাল ৭:৫৪ | ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ বঙ্গাব্দ
গ্রীন পেইজ
পাহাড় কেঁটে জমি দখল
পরিবেশ দূষণ

পাহাড় কেঁটে জমি দখল

পাহাড় কেঁটে জমি দখল

একসময় হবিগঞ্জের রূপাইছড়া সরকারি পাহাড় প্রায় ৫০০ ফুট উঁচু ছিল। কিন্তু, মাটি বিক্রি ও গাছ কাটার কারণে এখন তা বিলুপ্তির পথে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, অবৈধভাবে পাহাড় কাটা, মাটি ও বালি উত্তোলনের পেছনে একটি প্রভাবশালী মহল কাজ করেছে। যাদের পেছনে ক্ষমতাসীন দলের এক নেতার পৃষ্ঠপোষকতা আছে। এদিকে, পাহাড় কাটার ক্ষেত্রে পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ও স্থানীয় প্রশাসন নীরব পর্যবেক্ষক ভূমিকা পালন করছেন বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।



রূপাইছড়া রাবার গার্ডেন কর্তৃপক্ষ জানায়, বাগানটির মোট আয়তন ১ হাজার ৯৬৩ একর। দেশে ১৭টি সরকারি মালিকানাধীন রাবার বাগান আছে। যার মধ্যে ৪টি সিলেট বিভাগে এবং তাদের অন্যতম হবিগঞ্জের রূপাইছড়া।

রাবার বাগান কর্তৃপক্ষ জানান, পুটিজুরী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও হবিগঞ্জ জেলা তাঁতি লীগের সভাপতি মো. মুদ্দাত আলী বাগানের প্রায় ১৯ একর জমি দখল করে নিয়েছেন এবং আরও ৩ একর জমির মালিকানা দাবি করেছেন। এ ছাড়াও, আরও কয়েকজন বালি ব্যবসায়ী বাগানের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত সোশানছড়া নদী থেকে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন অব্যাহত রেখেছেন।

রাবার বাগানের টিলার বাসিন্দা সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘এখানের বাগান ও পাহাড়গুলো অরক্ষিত, কারণ কোনো সীমানা প্রাচীর নেই। এমন পরিস্থিতিতে যারা বালি ও মাটি উত্তোলন এবং গাছ কাটতে চায় তারা আমাদের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছে। তা সত্ত্বেও কর্তৃপক্ষ কখনো কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।’

কল্যাণপুর গ্রামের বাসিন্দা সাদেক মিয়া অভিযোগ করেন, ‘প্রতি রাতেই পাহাড় কাটা হচ্ছে। ৮ বিঘা একটি খেলার মাঠ, মাঠের পূর্ব দিকে একটি ১০ একর রাবার বাগানের নার্সারি এবং মুদ্দাত আলীর জমি ব্যবসার জন্য ১২ ফুট প্রশস্ত একটি রাস্তা ধ্বংস করা হয়েছে।’



বালু ও ভূমি ব্যবস্থাপনা আইনে ব্যক্তিগত মালিকানাধীন পাহাড় কাটা যাবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মাটি ও বালি উত্তোলনে খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন আছে আমার।’

বাংলাদেশ পরিবেশ আইনজীবী সমিতির (বেলা) সিলেট বিভাগীয় সমন্বয়কারী শাহ শাহেদা আক্তার বলেন, পরিবেশ সংরক্ষণ (সংশোধন) আইন-২০১০ অনুযায়ী, পাহাড় কাটা একটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের পূর্বানুমতি ছাড়া কোনো সরকারি, আধা-সরকারি বা স্বায়ত্তশাসিত সংস্থাকে পাহাড় কাটতে দেওয়া হয় না।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের হবিগঞ্জ চ্যাপ্টারের সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল সোহেল বলেন, ‘সরকার ২০৩০ সালের মধ্যে দেশের মোট জমির ২০ শতাংশ বনভূমি বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে। কিন্তু, অবাক করা ব্যাপার হলো প্রতি বছর সরকারি কর্মকর্তাদের সহায়তায় সরকারি পাহাড় কাটা হচ্ছে।’

“Green Page” কে সহযোগিতার আহ্বান

সম্পর্কিত পোস্ট

Green Page | Only One Environment News Portal in Bangladesh
Bangladeshi News, International News, Environmental News, Bangla News, Latest News, Special News, Sports News, All Bangladesh Local News and Every Situation of the world are available in this Bangla News Website.

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই স্কিপ করতে পারেন। গ্রহন বিস্তারিত