29 C
ঢাকা, বাংলাদেশ
রাত ১০:২৭ | ৪ঠা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ বঙ্গাব্দ
গ্রীন পেইজ
পরিবেশ রক্ষায় ১৯টি একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক পণ্য নিষিদ্ধ করল ভারত
পরিবেশ রক্ষা

পরিবেশ রক্ষায় ১৯টি একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক পণ্য নিষিদ্ধ করল ভারত

পরিবেশ রক্ষায় ১৯টি একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক পণ্য নিষিদ্ধ করল ভারত

পরিবেশ দূষণ কমাতে ১৯টি একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক পণ্য নিষিদ্ধ করেছে মোদি সরকার। সোমবার এক বিবৃতিতে জানানো হয়-নিষিদ্ধের মধ্যে স্ট্র, ডিসপোজিবল কাটলারি, ইয়ারবাড, বেলুনের সঙ্গে থাকা প্লাস্টিকের কাঠি, ক্যানডি-আইসক্রিম ও সিগারেটের প্যাকেট রয়েছে।

১৯টি প্লাস্টিক পণ্য নিষিদ্ধ করার ফলে এখন থেকে এগুলো উৎপাদন, আমদানি, মজুত, বিতরণ বা বিক্রি করা বেআইনি হয়ে গেল। একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের অবৈধ ব্যবহার, বিক্রয় ও বিতরণ রোধে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার।



তবে আইনের প্রকৃত প্রয়োগের অধিকার থাকছে স্বতন্ত্র রাজ্য এবং শহরের পৌর সংস্থাগুলোর হাতে। একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের ব্যাগগুলোও পর্যায়ক্রমে সরিয়ে দেওয়া হবে। পুনঃব্যবহারকে উৎসাহিত করার জন্য মোটা ব্যাগ ব্যবহারের প্রচলন করা হবে।

তবে এই ঘোষণায় খুশি নন প্লাস্টিক উৎপাদনকারীরা। তারা সরকারের কাছে আপাতত প্লাস্টিক নিষিদ্ধ না করার আবেদন জানিয়েছে। তারা চলমান মুদ্রাস্ফীতির বিষয়টি সামনে আনছেন।

তাদের মতে, মুদ্রাস্ফীতি মোকাবিলায় এটি ক্ষতিকর হবে। এছাড়া এ সিদ্ধান্তের ফলে অনেকে চাকরি হারানোর শঙ্কায় পরবে। তাদের অভিযোগ, নিষেধাজ্ঞার জন্য পর্যাপ্ত প্রস্তুতি নেওয়ার সময় দেওয়া হয়নি।

ভারতের কেন্দ্রীয় পরিবেশ মন্ত্রী ভূপেন্দ্র যাদব গতকাল সোমবার নয়াদিল্লিতে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘গত এক বছর ধরে এগুলো নিষিদ্ধ করার বিষয়টি বিবেচনাধীন ছিল।’

নিষিদ্ধের তালিকায় প্লাস্টিকের বোতলগুলোকে রাখা হয়নি। তবে কেন্দ্রীয় সরকার তাদের জন্য কিছু নীতিমালা বেধে দেবে।



পেপসিকো, কোকা-কোলা, পার্লে এগ্রো, ডাবর এবং আমুলের মতো কোম্পানিগুলো নিষেধাজ্ঞা থেকে স্ট্র যেন বাদ দেওয়া হয় সেই চেষ্টা চালিয়েছিল বলে বলা হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, শুধু নিষেধাজ্ঞা দিয়ে প্লাস্টিকের ব্যবহার কমানো কঠিন।

দিল্লি-ভিত্তিক অ্যাডভোকেসি গ্রুপ টক্সিক্স লিঙ্কের পরিচালক রবি আগরওয়াল বলেন, ‘নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত নি:সন্দেহে একটি ভালো উদ্যোগ। তবে এর সাফল্য নির্ভর করবে এটি কতটা কার্যকর হয়েছে সেটির ওপর।’

উল্লেখ্য, ভারতে বছরে ১ কোটি ৪০ লাখ টন প্লাস্টিক ব্যবহার করা হয়। বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সংগঠিত ব্যবস্থার অভাবে দেশটিতে ব্যাপকভাবে আবর্জনা ছড়ায়। দেশটির শহর জুড়ে ব্যবহৃত প্লাস্টিকের জিনিসপত্রে ছেয়ে গেছে।

যা ড্রেন, নদী এবং সাগরে ছড়িয়ে পড়েছে। এসবের কারণে প্রাণীরাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে এসবের প্রভাবে প্রাণীদের মৃত্যুও হয়ে থাকে।

জাতিসংঘ বলছে, সাগর-মহাসাগরে ব্যাপক মাত্রায় প্লাস্টিক বর্জ্য ছড়িয়ে পড়েছে। এর পরিমাণ আনুমানিক ১০ কোটি টন। গভীর সাগরে বসবাস করা তিমির পেটেও প্লাস্টিকের ক্ষুদ্র কণার উপস্থিতি দেখতে পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

“Green Page” কে সহযোগিতার আহ্বান

সম্পর্কিত পোস্ট

Green Page | Only One Environment News Portal in Bangladesh
Bangladeshi News, International News, Environmental News, Bangla News, Latest News, Special News, Sports News, All Bangladesh Local News and Every Situation of the world are available in this Bangla News Website.

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই স্কিপ করতে পারেন। গ্রহন বিস্তারিত