28 C
ঢাকা, বাংলাদেশ
সকাল ৬:৪৮ | ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ বঙ্গাব্দ
গ্রীন পেইজ
পরিবেশ রক্ষায় পিট উত্তোলন থেকে সরে এসেছে আয়ারল্যান্ড
পরিবেশ রক্ষা

পরিবেশ রক্ষায় পিট উত্তোলন থেকে সরে এসেছে আয়ারল্যান্ড

পরিবেশ রক্ষায় পিট উত্তোলন থেকে সরে এসেছে আয়ারল্যান্ড

আয়ারল্যান্ডের প্রকৃতির অন্যতম পরিচয় পিটল্যান্ড বা জলাভূমি৷ পিটল্যান্ড থেকে একসময় পিট উত্তোলন করা হতো, যেটা সে দেশের জ্বালানির একটা বড় উৎস ছিল৷

পিটল্যান্ড খুব পরিবেশবান্ধব৷ কারণ সেখানে অনেক কার্বন জমা থাকে৷ কিন্তু এই পিটল্যান্ডই আবার পরিবেশের জন্য দারুণ ক্ষতির কারণ হয়ে ওঠে যখন পিট সংগ্রহের জন্য সেখান থেকে পানি সরানো হয়৷ পরিবেশের কথা ভেবে পিট উত্তোলন থেকে সরে এসেছে আয়ারল্যান্ড৷



সেন্ট্রাল আয়ারল্যান্ডের অ্যাবিলিক্স মুর প্রায় ৫০০ হেক্টর আয়তনের এক পিটল্যান্ড বা জলাভূমি৷ বছর দশেক আগে সেখান থেকে পিট উত্তোলনের পরিকল্পনা করা হয়েছিল৷ কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দাদের প্রতিবাদের মুখে সেটা সম্ভব হয়নি৷

অ্যাবিলিক্স জলাভূমি প্রকল্পের উপদেষ্টা ক্রিস ইস জানান, পিটল্যান্ডের উদ্ভিদের অনন্য বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, সেগুলোর পানি ধারণক্ষমতা অসাধারণ৷ নিজ ওজনের চেয়ে সর্বোচ্চ প্রায় ২৫ গুন বেশি পানি ধারণ করতে পারে তারা৷ ক্রিস জানান, পিট উত্তোলন করতে গিয়ে পানি সরানো হলে কার্বন নির্গমনের ঘটনা ঘটে, যার পরিমাণ বছরে প্রতি হেক্টরে প্রায় ছয় থেকে ১৫ টন৷

আয়ারল্যান্ডের প্রকৃতির সবচেয়ে পরিচিত চিত্র সম্ভবত পিটল্যান্ড বা জলাভূমি৷ দেশটির প্রায় ১৭ শতাংশ এলাকায় তাদের দেখা পাওয়া যায়৷ আর অক্ষত জলাভূমি স্বাস্থ্যকর পরিবেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ৷

বিশ্বের মোট ভূমির মাত্র তিন শতাংশ পিটল্যান্ড হলেও সেখানে অরণ্যের চেয়ে প্রায় দ্বিগুন বেশি কার্বন জমা থাকে৷ গত কয়েক দশক আয়ারল্যান্ডে জ্বালানির মূল উৎস ছিল পিট৷ কিছু অঞ্চলে এখনও প্রায় ২৫ শতাংশ বাড়ি গরম রাখে পিট৷ তবে পরিবর্তন আসছে৷

প্রায় ৫০ শতাংশ সরকারি মালিকানার কোম্পানি ‘বোর্ড না মোনা’ অনেক বছর পিট উত্তোলন করেছে৷ মূলত তিনটি বিদ্যুৎকেন্দ্র চালাতে সেই পিট ব্যবহার করা হতো৷ শুধু পিট দিয়ে চলা শেষ বিদ্যুৎকেন্দ্রটি ২০২০ সালে বন্ধ করে দেয়া হয়৷ আর গতবছরের শুরুতে পিট উত্তোলন পুরোপুরি বন্ধের ঘোষণা দেয় বোর্ড না মোনা৷

তবে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে অতীত ঐতিহ্যের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে ছোট আকারে হলেও পিট উত্তোলন কাজ ধরে রাখার পক্ষে প্যাট মার্লেহান৷ তিনি বলেন, ‘বোর্ড না মোনা কোম্পানি পিট উত্তোলন বন্ধ করে দেয়ায় এখন কার্বন জমা রাখার অনেক জায়গা পাওয়া যাবে, অনেক জলাভূমি অক্ষত থাকবে৷



ফলে ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি ধরে রাখতে ভবিষ্যতে ছোট আকারে পিট উত্তোলন টিকিয়ে রাখলে কোনো সমস্যা হবে বলে মনে হয় না৷ বরং আমি মনে করি, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য এটা গুরুত্বপূর্ণ৷’

অবশ্য বিষয়টা এত সাধারণ নয় বলে মনে করেন পিটল্যান্ড কনজারভেশন কাউন্সিলের ট্রিস্ট্রাম হোয়েট৷ তিনি বলেন পাখি, ফড়িংসহ অনেক পোকার আবাসস্থল এই জলাভূমি৷ তাই ছোট আকারে পিট উত্তোলনও পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর৷ তিনি বলেন,

‘জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার কিংবা বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য এতদিন মিডল্যান্ডে যেভাবে পিট উত্তোলন করা হয়েছে তার তুলনায় ছোট আকারে পিট উত্তোলন চালিয়ে গেলে পরিবেশের উপর হয়ত ততটা প্রভাব পড়বে না৷ তবে এটা ভুলে গেলে চলবে না যে, পিট তৈরির জন্য যখন পানি সরানো হয় তখন আসলে আমরা পুরো জলাভূমিরই পানি সরাই, যার প্রভাব সেখানে থাকা উদ্ভিদ ও পোকামাকড়, পাখির উপর পড়বে৷ এছাড়া নদীতে পলি মিশে জলজ প্রাণির জন্যও সমস্যা তৈরি করবে৷’

তবে আশার কথা হচ্ছে, সস্তা ও প্রচুর জ্বালানির উৎস হিসেবে আয়ারল্যান্ডে জলাভূমি ব্যবহারের সময় শেষ৷ তার পরিবর্তে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা ও বিভিন্ন প্রজাতি রক্ষায় জলাভূমির অবদান বিষয়ে সচেতনতা বাড়ছে৷

“Green Page” কে সহযোগিতার আহ্বান

সম্পর্কিত পোস্ট

Green Page | Only One Environment News Portal in Bangladesh
Bangladeshi News, International News, Environmental News, Bangla News, Latest News, Special News, Sports News, All Bangladesh Local News and Every Situation of the world are available in this Bangla News Website.

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই স্কিপ করতে পারেন। গ্রহন বিস্তারিত