27 C
ঢাকা, বাংলাদেশ
সকাল ৯:৫৬ | ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
গ্রীন পেইজ
তাজিংডং পাহাড়ে ইটভাটা স্থাপন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানের ১০ বছরের জেল
বাংলাদেশ পরিবেশ

তাজিংডং পাহাড়ে ইটভাটা স্থাপন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানের ১০ বছরের জেল

বান্দরবানের তাজিংডং পাহাড়ে ইটভাটা স্থাপনের দায়ে উপজেলা পরিষদের সাবেক এক চেয়ারম্যানকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দওেয়ার পাশাপাশি পাশাপাশি সাবেক ওই চেয়ারম্যানের ১৭ লাখ টাকা  করা হয়েছে জরিমানাও। দণ্ডপ্রাপ্ত ওই সাবেক চেয়ারম্যানের নাম আবদুল কুদ্দুস। তিনি বান্দরবান সদর উপজেলার পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। বান্দরবানের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও পরিবেশসংক্রান্ত স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল্লাহ আল মামুনের আদালত গতকাল মঙ্গলবার রাতে এ আদেশ দেন।

আদালত ও পরিবেশ অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানিয়েছেন, বান্দরবান চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের পরিবেশসংক্রান্ত স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত তাজিংডং পাহাড়ের প্রাতাপাড়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। সেখানে প্রাতাপাড়ায় কোনো রকম বৈধতা ছাড়া ড্রাম চিমনির ইটভাটা পরিচালনা করতে দেখেন আদালত। ভ্রাম্যমাণ আদালতের সঙ্গে প্রাতাপাড়া ইটভাটা স্থাপনের উদ্যোক্তাদের একজন বান্দরবান সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল কুদ্দুসকেও সঙ্গে নিয়ে যান। আবদুল কুদ্দুস পরিবেশসংক্রান্ত স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতকে ইটভাটার বৈধতার কোনো কিছু দেখাতে পারেননি। অবৈধ ইটভাটা পরিচালনার বিষয়টি তিনি আদালতের কাছে স্বীকার করেছেন বলে পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সামিউল আলম কুরশী জানিয়েছেন।

পরিবেশসংক্রান্ত স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আদেশে বলা হয়েছে, তাজিংডং পাহাড়ের প্রাতাপাড়ায় অবৈধভাবে ইটভাটা পরিচালনায় ২০১৩ সালের ইটভাটা স্থাপন আইন ও ১৯৯৫ সালের পরিবেশ সংরক্ষণ আইনের লঙ্ঘন হয়েছে। আদালতের আদেশের পর গতকাল রাতেই সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল কুদ্দুসকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বান্দরবানের ভারপ্রাপ্ত জেলার স্বপন কুমার ঘোষ আজ বুধবার প্রথম আলোকে বলেন, আবদুল কুদ্দুস কারাগারে আছেন।

থানচি-লেক্রি নির্মাণাধীন সড়কে থানচি উপজেলা সদর থেকে ১৭ কিলোমিটার দূরে কোনো বৈধতা ছাড়া তাজিংডং পাহাড়ের প্রাতাপাড়ায় ইটভাটা স্থাপন করা হয়েছে। পরিবেশ অধিদপ্তরের বান্দরবানের সহকারী পরিচালক সামিউল আলম কুরশী বলেছেন, গত ২৩ ডিসেম্বর পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে ইটভাটাটি বন্ধের নির্দেশ দেওয়ার পরও ড্রাম চিমনির ইটভাটাটিতে বনাঞ্চলের গাছ ও পাহাড় কেটে মাটি ব্যবহার করে ইট পোড়ানো হচ্ছে। এর আগে উপজেলা প্রশাসন ইটভাটাটি বন্ধের নির্দেশ দিলেও উদ্যোক্তারা বন্ধ করেননি। ইটভাটাটি স্থাপনে আবদুল কুদ্দুস ছাড়াও আরও তিনজন রয়েছেন বলে পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

প্রাতাপাড়াবাসী বম জনগোষ্ঠীর লোকজন তাঁদের ভোগদখলীয় চাষের জমি ও পানির উৎস দখল করে ইটভাটা স্থাপনের অভিযোগ করেছেন। তাঁরা ইটভাটাটি বন্ধের জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেছিলেন।

সম্পর্কিত পোস্ট

Green Page | Only One Environment News Portal in Bangladesh
Bangladeshi News, International News, Environmental News, Bangla News, Latest News, Special News, Sports News, All Bangladesh Local News and Every Situation of the world are available in this Bangla News Website.

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই স্কিপ করতে পারেন। গ্রহন বিস্তারিত