31 C
ঢাকা, বাংলাদেশ
রাত ১২:৪৯ | ১৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ বঙ্গাব্দ
গ্রীন পেইজ
গায়িকা রিহানা ও পরিবেশকর্মী গ্রেটা থুনবার্গ ও কঙ্গনা
আন্তর্জাতিক পরিবেশ

গায়িকা রিহানা ও পরিবেশকর্মী গ্রেটা থুনবার্গ টুইট করলেন কৃষক আন্দোলনের পক্ষ নিয়ে, প্রতিবাদ কঙ্গনার

গায়িকা রিহানা ও পরিবেশকর্মী গ্রেটা থুনবার্গ টুইট করলেন কৃষক আন্দোলনের পক্ষ নিয়ে, প্রতিবাদ কঙ্গনার

নয়াদিল্লি: কৃষি আইনের প্রতিবাদে দিল্লি সীমানায় যে কৃষক আন্দোলন চলছে তার সমর্থনে আন্তর্জাতিক পপ আইকন রিহানা রিহানা আন্দোলনকারী কৃষকদের ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা সংক্রান্ত একটি সংবাদমাধ্যমের খবর শেয়ার করে টুইট করেন কৃষক আন্দোলন নিয়ে।



প্রশ্ন করেন, কেন আমরা এ ব্যাপারে কথা বলছি না? এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তাঁর ফলোয়ার সংখ্যা লাখখানেক বেড়ে যায়। এরপরই রিহানা টুইটারে ট্রেন্ড করতে থাকেন। ভারত থেকে অসংখ্য মানুষ তাঁর পক্ষে ও বিপক্ষে টুইট করেন।

বর্তমান সময়ের নানা ইস্যু নিয়ে টুইটারে নিজের মতামত দেন রিহানা। মঙ্গলবারই তিনি মায়ানমারের সেনা অভ্যুত্থান নিয়ে টুইট করেন। লেখেন, মায়ানমার, আমার প্রার্থনা তোমার সঙ্গে রয়েছে।

তবে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত তাঁর টুইট কোট করে মন্তব্য করেন, এ নিয়ে কেউ কথা বলছে না কারণ ওরা কেউ চাষী নয়, ওরা জঙ্গি যারা ভারত ভাগ করতে চাইছে, যাতে চিন আমাদের এই শতধাবিভক্ত অসুরক্ষিত দেশ দখল করে নিতে পারে আর আমেরিকার মত ভারতকেও চিনা কলোনি বানাতে পারে.. চুপচাপ থাক তুমি নির্বোধ, তোমাদের মত আমরা আমাদের দেশ বিক্রি করছি না।

কৃষি আইনের প্রতিবাদে দিল্লি সীমানায় যে কৃষক আন্দোলন চলছে তার সমর্থনে এগিয়ে এলেন কিশোরী পরিবেশকর্মী গ্রেটা থুনবার্গ। মঙ্গলবার রাতে গ্রেটা টুইট করে বলেছেন, আমরা ভারতের কৃষক বিদ্রোহের পাশে রয়েছি।

কঙ্গনা কৃষক আন্দোলন নিয়ে নিয়মিত টুইট করে চলেছেন। দলজিৎ দোসাঞ্জ, প্রিয়ঙ্কা চোপড়া, স্বরা ভাস্করের মত অভিনেতা অভিনেত্রীরা কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে মুখ খুললেও কঙ্গনা অভিযোগ করেছেন, এঁরা দেশদ্রোহী, প্রকৃত কৃষকরা এঁদের সঙ্গে নেই। দলজিতের সঙ্গে এ নিয়ে তাঁর দীর্ঘ টুইটার যুদ্ধও চলেছে।

মঙ্গলবার রিহানা এবং গ্রেটা থুনবার্গ কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়ে টুইট করতেই এবার পাল্টা তোপ দাগল কেন্দ্রীয় বিদেশ মন্ত্রক। বুধবার মন্ত্রকের তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক যে কিছু স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠী নিজেদের অ্যাজেন্ডা চালানোর জন্য এই ধরনের আন্দোলনগুলিকে ইন্ধন দিচ্ছে।

এদিনই সংসদে কৃষক আন্দোলন নিয়ে আলোচনায় সম্মত হয়েছে সরকার ও বিরোধী পক্ষ। তিনটি কৃষি আইনের সমর্থনে বিদেশ মন্ত্রক জানিয়েছে, এর ফলে বিস্তৃত বাজারের লাভ ওঠাতে পারবেন কৃষকরা। অর্থনৈতিকও পরিবেশগত ভাবে কৃষি সহায়ক এই তিনটি আইন। কিন্তু কম সংখ্যক কৃষক এই আইনের বিরোধিতা করছেন। তবে কেন্দ্রীয় সরকার কৃষকদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি আছে বলে জানিয়েছে মন্ত্রক। কৃষকদের আবেগ ও স্বার্থে কোনওভাবে আঘাত করবে না কেন্দ্র।



এখনও পর্যন্ত কৃষকদের সঙ্গে ১১ রাউন্ড বৈঠক হয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের। কিন্তু সমাধান সূত্র এখনও অধরা। এমনকী সরকার কৃষি আইন স্থগিত রাখার কথাও বলেছে আগামী দেড় বছরের জন্য। কৃষক আন্দোলন নিয়ে রিহানা ও গ্রেটা থুনবার্গ টুইট করে সমর্থনের কথা জানাতেই এবার অন্যান্য আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ব্যক্তিত্বরা সুর চড়িয়েছেন। তারই প্রতিবাদে বিবৃতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রক।

আন্দোলনকারী কৃষকরা তিন কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। এ মাসের ৬ তারিখ কৃষক সংগঠনগুলি ৩ ঘণ্টা দেশব্যাপী চাক্কা জ্যামের ঘোষণা করেছে।

“Green Page” কে সহযোগিতার আহ্বান

সম্পর্কিত পোস্ট

Green Page | Only One Environment News Portal in Bangladesh
Bangladeshi News, International News, Environmental News, Bangla News, Latest News, Special News, Sports News, All Bangladesh Local News and Every Situation of the world are available in this Bangla News Website.

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই স্কিপ করতে পারেন। গ্রহন বিস্তারিত