30 C
ঢাকা, বাংলাদেশ
রাত ১০:০১ | ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
গ্রীন পেইজ
প্রাকৃতিক দুর্যোগ

আম্ফানের তান্ডবে খুলনায় মৎস্য খাতে ৩শ’ কোটি টাকার ক্ষতি

মৎস্য অধিদফতর খুলনা বিভাগীয় অফিস সূত্রের তথ্যানুযায়ী জানা গেছে ক্ষতির এই বিবরণী

প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের আঘাতে খুলনা বিভাগের ৬টি জেলার ১৯৭টি ইউনিয়নের মৎস্যখাতে ২৮৪ কোটি ৮ লাখ ৮৪ হাজার টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কার্প জাতীয় মাছ (সাদা মাছ), চিংড়ি, কাঁকড়া, কুচিয়া ও অবকাঠামোতে হয়েছে এই ক্ষতি হয়েছে।

৬টি জেলার মধ্যে খুলনায় ৯৬ কোটি ৭২ লাখ ৪৩ হাজার টাকার, বাগেরহাটে ৫ কোটি ৭১ লাখ ২৭ হাজার টাকার, সাতক্ষীরায় ১৭৬ কোটি ৪৫ লাখ ৪০ হাজার টাকার, ঝিনাইদহে ২ কোটি ৪৯ লাখ ৫০ হাজার টাকার, চুয়াডাঙ্গায় ২ কোটি ৬১ লাখ ৯৪ হাজার টাকার ও মাগুরায় ৮ লাখ ৩০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে। মৎস্য অধিদফতর খুলনা বিভাগীয় অফিস সূত্রে এ সব তথ্য জানা গেছে।

খুলনা বিভাগীয় মৎস্য অধিদফতরের উপ-পরিচালক নারায়ন চন্দ্র মণ্ডল বলেন, “আম্ফানের আঘাতে খুলনা বিভাগের ৩১টি উপজেলায় ৬৪ কোটি ৫ লাখ ১৫ হাজার টাকার কার্প জাতীয় মাছ, ১৮৮ কোটি ৮ লাখ ৭৪ হাজার টাকার চিংড়ি মাছ, ৩ কোটি ১৮ লাখ ৬০ হাজার টাকার কার্প জাতীয় মাছের পোনা, ১৫ কোটি ৯০ লাখ ৮৫ হাজার টাকার চিংড়ি মাছে পোনা (পিএল), ১ কোটি ৮৩ লাখ ৭৫ হাজার টাকার কুচিয়া ও কাঁকড়া এবং ১০ কোটি ৯৪ লাখ টাকার অবকাঠামোগত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।”

বিভাগীয় মৎস্য অফিস সূত্রে জানা গেছে, ঝড়ের কারণে ৭টি বিভাগে পানিতে প্লাবিত হয়েছে ১৫৯২ দশমিক ১২ হেক্টর জমিতে থাকা ৮ হাজার ৯২৮টি পুকুর ও দিঘি (কুচিয়া ও কাঁকড়ার ৬১৩টি সহ), ২৪৭৬২ দশমিক ৩৫ হেক্টর জমিতে থাকা ২২ হাজার ২৪৭টি ঘের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর ফলে ৩১৬০ দশমিক ১২ মেট্রিক টন কার্প জাতীয় মাছ ও ১ কোটি ৭৭ লাখ ৮২ হাজার পিস কার্প জাতীয় মাছের পোনা, ৩৬৩৫ দশমিক ৮৯ মেট্রিক টন চিংড়ি ও ২৯ কোটি ৩৮ লাখ পিস চিংড়ির পোনা (পিএল) এবং ৪২ দশমিক ৯৫ মেট্রিক টন কাঁকড়া ও কুচিয়া ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

খুলনা জেলা মৎস্য অফিস সূত্রে আরও জানা গেছে, লোনা পানিতে প্লাবিত হয়ে ৬২৫ দশমিক ৮১ হেক্টর জমিতে থাকা ৮ হাজার ৯৬টি পুকুর ও দিঘি (কুচিয়া ও কাঁকড়ার ২৪০টিসহ), ৮৫৭৭ দশমিক ৮ হেক্টর জমিতে থাকা ৬ হাজার ৮৬৬টি সাদা মাছ ও চিংড়ি ঘের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর ফলে ১১৭৬ দশমিক ৯ মেট্রিক টন সাদা মাছ ও ১ কোটি ৫ লাখ পিস কার্প জাতীয় মাছের পোনা, ১০৪৭ দশমিক ৯ মেট্রিক টন চিংড়ি ও ১ কোটি ৪০ লাখ পিস চিংড়ির পোনা (পিএল) এবং সাড়ে ১৭ মেট্রিক টন কাঁকড়া ও কুচিয়া ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

খুলনা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আবু ছাঈদ বলেন, “ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে খুলনার ৫টি উপজেলার মৎস্যখাতে ৯৬ কোটি ৭২ লাখ ৪৩ হাজার টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এরমধ্যে কয়রায় ৫১ কোটি ২৩ লাখ ৭০ হাজার টাকার, দাকোপে ২ কোটি ৫৯ লাখ ৯৮ হাজার টাকার, পাইকগাছায় ৭ কোটি ৯৩ লাখ ৭৫ হাজার টাকার, ডুমুরিয়ায় ২৬ কোটি ৭২ লাখ ৫০ হাজার টাকার ও বটিয়াঘাটায় ৮ কোটি ২২ লাখ ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “খুলনার ৫ উপজেলায় ২৯ কোটি ২৫ লাখ ৯ হাজার টাকার কার্প জাতীয়, ৫৯ কোটি ৪২ লাখ ৬ হাজার টাকার চিংড়ি মাছ, ১ কোটি ৪৫ লাখ টাকার কার্প জাতীয় মাছের পোনা, ১ কোটি ২৮ লাখ টাকার চিংড়ি মাছে পোনা (পিএল), ৯৪ লাখ ৯৫ হাজার টাকার কুচিয়া এবং ৪ কোটি ৩৬ লাখ টাকার অবকাঠামোগত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।”

সম্পর্কিত পোস্ট

Green Page | Only One Environment News Portal in Bangladesh
Bangladeshi News, International News, Environmental News, Bangla News, Latest News, Special News, Sports News, All Bangladesh Local News and Every Situation of the world are available in this Bangla News Website.

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই স্কিপ করতে পারেন। গ্রহন বিস্তারিত