29 C
ঢাকা, বাংলাদেশ
বিকাল ৫:৪৩ | ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
গ্রীন পেইজ
আগামী ১ মাসের মধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তরে পাঁচজন ম্যাজিস্ট্রেট দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ
প্রাকৃতিক পরিবেশ

আগামী ১ মাসের মধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তরে পাঁচজন ম্যাজিস্ট্রেট দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

আগামী এক মাসের মধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তরে পাঁচজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দিতে জনপ্রশাসন সচিবকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আজ রোববার (২ ফেব্রুয়ারি) বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আজ রোববার (২ ফেব্রুয়ারি) হাইকোর্ট ঢাকার বায়ুর মান ও জনবল বিষয়ে ব্যাখ্যা জানাতে পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে তলব করেছিলেন। ঢাকার বায়ুর মান নিয়ে করা এক মামলায় আদালতের নির্দেশনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি বিষয়ক শুনানিতে গত ১৩ জানুয়ারি ওই আদেশ দেওয়া হয়।হাইকোর্টের ওই নির্দেশ অনুসারে আজ আদালতে হাজির হন পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ কে এম রফিক আহাম্মদ।

আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার। পরিবেশ অধিদপ্তরের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী আমাতুল করীম।

পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ কে এম রফিক আহাম্মদ শুনানিতে ঢাকাসহ বড় বড় শহরের সার্বিক বায়ুদূষণ নিয়ন্ত্রণে বিশেষজ্ঞ পর্যায়ের সেমিনারের তথ্য ও সুপারিশ তুলে ধরেন।

এ কে এম রফিক আহাম্মদ বলেন, ২০০২ – ২০১৬ সাল পর্যন্ত ঢাকার বায়ুর মান খারাপ ছিল। ২০১৬ – ২০১৯ সাল পর্যন্ত বায়ুর মান আরও বেশি খারাপ হয়েছে। কারণ হিসেবে উন্নয়ন ও নির্মাণ কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি পাওয়ায় এমনটি ঘটেছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। বায়ু দূষণের উৎস হিসেবে ইটভাটা, যানবাহন, রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি, বিভিন্ন ধরনের অবকাঠামো উন্নয়ন, নির্মাণকাজ, পৌর বর্জ্য, বায়োমাস পোড়ানো, ট্রান্স বাউন্ডারি প্রভাবকে বিশেষভাবে দায়ী করা হয়।

শুনানিতে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ বলেন, অধিদপ্তরের অর্গানোগ্রাম অনুসারে আটজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট থাকার কথা। আছে মাত্র তিনজন। পরিবেশ অধিদপ্তরের কার্যক্রমকে গতিশীল করতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া প্রয়োজন। এ বিষয়ে তিনি আদালতের নিদর্শনার আর্জি জানান।পরে আদালত আদেশ দেন। একই সঙ্গে বায়ুদূষণ রোধে আদালতের দেওয়া নির্দেশনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি জানিয়ে আগামী ১০ মার্চ প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেন।

এর আগে, গত ২৬ নভেম্বর হাইকোর্টের একই বেঞ্চ এক আদেশে ঢাকা শহর ও আশপাশের এলাকায় বায়ুদূষণের কারণ ও দূষণ কার্যক্রম রোধ নীতিমালা প্রণয়নের জন্য উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি কমিটি গঠন করতে নির্দেশ দেন। এ ছাড়া ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর, মুন্সিগঞ্জ ও মানিকগঞ্জ জেলার অবৈধ ইটভাটা ১৫ দিনের মধ্যে বন্ধ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। নির্দেশনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি জানিয়ে বিবাদীদের আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেন আদালত।এর ধারাবাহিকতায় পরিবেশসচিব ও পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের পক্ষে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। এই প্রতিবেদনের ওপর শুনানি হয়।

উল্লেখ্য, ‘ঢাকার বাতাসে নতুন বিপদ’ শিরোনামে গত বছরের ২১ জানুয়ারি প্রথম আলোয় একটি প্রতিবেদন ছাপা হয়। এটি যুক্ত করে পরিবেশবাদী ও মানবাধিকার সংগঠন এইচআরপিবির পক্ষে গত ২৭ জানুয়ারি একটি রিট করা হয়।

সম্পর্কিত পোস্ট

লোড হচ্ছে
Green Page | Only One Environment News Portal in Bangladesh
Bangladeshi News, International News, Environmental News, Bangla News, Latest News, Special News, Sports News, All Bangladesh Local News and Every Situation of the world are available in this Bangla News Website.

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি ইচ্ছা করলেই স্কিপ করতে পারেন। গ্রহন বিস্তারিত